Breaking News
Home / রংপুর বিভাগ / রংপুর / রংপুর-২( বদরজঞ্জ-তারাগঞ্জ ) এর নির্বাচনী হালচাল

রংপুর-২( বদরজঞ্জ-তারাগঞ্জ ) এর নির্বাচনী হালচাল

রংপুর-২(বদরজঞ্জ-তারাগঞ্জ) এর নির্বাচনী হালচাল

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে প্রতিটি রাজনৈতিক দলে চলছে অান্তঃ কোন্দল। সংসদীয় আসন রংপুর-২ এ একই রীতি চলমান। জাতীয় পার্টির ঘাটি হিসাবে রংপুর অঞ্চলের অন্যান্য আসনের ন্যায় এই আসনটিও অন্যতম। কিন্তু, জাপার সাংগঠনিক কর্মকান্ড দীর্ঘদিন থেকে মাঝি ব্যতিত নৌকার মতো। জাপার অন্যান্য উপজেলার ন্যায় বদরগঞ্জ ইউনিটেও পুর্নাঙ্গ কমিটি না থাকায় জাপার সাংগঠনিক অবস্থা অত্যন্ত নাজুক। আসন্ন নির্বাচনকে কেন্দ্র করে জাপার তৃণমূল পর্যায়ের নেতৃবৃন্দের মধ্যে চলছে আন্তঃ কোন্দল আর হতাশা। কারণ, আসন্ন নির্বাচনে এই আসনে জাপা চার ভাগে বিভক্ত। এবারের নির্বাচনে জাপার চারজন প্রার্থী মনোনয়ন দাখিল করে দলের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করেছে। জাপার মনোনয়ন দাখিল কৃত প্রার্থী মোকাম্মেল হক রয়েছেন নেতাকর্মীদের জল্পনা কল্পনায়। দীর্ঘদিন থেকে তিনি এলাকায় গণসংযোগ চালিয়ে আসছিলেন, প্রার্থী হওয়াতে দলের অন্যান্য নেতাদের মাঝে চলছে কোন্দল। কেননা বদরগঞ্জে জাপার প্রভাবশালী নেতা সাবলু চৌধুরীও মনোনয়ন দাখিল করেছেন। সাবলু সাহেবকে স্থানীয় জাপার ভিক্তি মনে করে দলের এক অংশের নেতাকর্মীরা। বাস্তবতা হচ্ছে তিনি নিজের ধারাবাহিকতা হারিয়ে নিজেকে খুজছেন হারানো রুপে।
দশম সংসদ নির্বাচনে মহাজোটের সাবেক এমপি আনিসুল ইসলাম মন্ডলও মনোনয়ন দাখিল করে বিতর্কের জন্ম দিয়েছেন। তিনি গত নির্বাচনে নির্বাচিত হওয়ার পর নিজেকে ওয়ান ম্যান আর্মি বলে নিজের সাথে এই আসনে জাপার অস্তিত্বকে বিনষ্ট করে খাঁদের কিনারায় ফেলেছেন। অপর প্রার্থী জিয়াউল বাবলুও গণসংযোগ চালাচ্ছেন ফলে দলের নেতাকর্মীদের হতাশা আর কোন্দলে পার হচ্ছে জাপার পদযাত্রা।…..
অপর দিকে বিএনপি তে চলছে সার্কাস।আসন্ন নির্বাচনে দলের চূড়ান্তর মনোনয়ন পেতে মরিয়া বিএনপি নেতা মাহাফুজুন নবী ডন ও সদ্য জাপা ছেরে বিএনপি তে আসা সাবেক এমপি মোহাম্মদ আলী সরকার। ফলে দলের নেতাকর্মীদের মাঝে চলছে আন্তঃ কোন্দল আর হতাশা।…. আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থী নৌকার কান্ডারি তারুণ্যের আইডল বর্তমান সাংসদ ডিউক চৌধুরীর সাথে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে পিছিয়ে থাকা এই আসনকে উন্নয়নের শিখরে নেয়ার চেতনায় উজ্জীবিত হয়ে বর্তমান সাংসদকে বেঁছে নিয়ে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার ধারাবাহিকতা বজায় রেখেছেন। বর্তমান সরকারের গত পাঁচ বছরে এমপি মহোদয় তার সংসদীয় আসনকে তৃণমূল থেকে নিয়ে গেছেন অনন্য উচ্চতায়। তাঁর পাঁচ বছরে তিনি কাঁচা রাস্তা পাঁকাকরণ, রাস্তা সম্প্রসারণ, বিভিন্ন স্কুল কলেজ মাদ্রাসার একাডেমিক ভবনের উদ্ভাবন ও মোড়ক উম্মোচন করা, ব্রীজ কালভাট নির্মান ও ফায়ার সার্ভিসের আধুনিকায়ন করাসহ এলাকার শিক্ষিত বেকরাদের ভাতা প্রদানের মাধ্যমে এলাকার উন্নয়নে ভাসিয়েছেন তাঁর সংসদীয় আসন। দলমত নির্বিশেষে বিভিন্ন দলের বঞ্চিত নেতাকর্মী, সাধারণ জনগণ ও আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীরা সবাই বর্তমান সাংসদ ডিউক চৌধুরীকে আগামী প্রজন্মের সুযোগ্য উত্তরসূরী ও আগামীর সম্পদ আখ্যা দিয়ে আসন্ন নির্বাচনে শতভাগ জয়লাভের আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন। সাধারণ ভোটার ও স্থানীয়দের সাথে কথা বলে জানা যায় তারা এলাকার উন্নয়ন চান। বর্তমান সরকারের উন্নয়নের আদলে আগামীতে যাতে তার ধারাবাহিকতা বজায় থাকে তা অব্যাহত রাখার দাবী জানান সেই সাথে স্থানীয়রা বলেন আসন্ন নির্বাচন যাতে অবাধ সুষ্ঠ হয় এবং ১/১১ ও বিএনপি জয়মায়াত নির্বাচনকে কেন্দ্র করে যাতে পেট্রল বোমা, জ্বালাও পোড়াওয়ের পুনরাবৃত্তি ঘটাতে না পারে তার জন্য সর্বাত্বক আইনি ব্যবস্থা গ্রহনের আহবান জানান।

About fcnnews

Check Also

রংপুর জেলা ও মহানগর জাতীয় পার্টির নির্বাচন পরিচালনা কমিটি গঠন

রংপুর জেলা ও মহানগর জাতীয় পার্টির নির্বাচন পরিচালনা কমিটি গঠন স্টাফ রিপোর্টার \ একাদশ জাতীয় …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *